কাশ্মীরি পণ্ডিতদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রীর - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Tuesday, 17 May 2022

কাশ্মীরি পণ্ডিতদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রীর



দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ১৬ মে সোমবার হিন্দু সম্প্রদায়ের একজন সরকারি কর্মচারীর গত সপ্তাহে হত্যার পরিপ্রেক্ষিতে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের জন্য সম্ভাব্য সর্বোত্তম নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ করেন। রাহুল ভাট ২০১০-১১ সালে অভিবাসীদের জন্য বিশেষ কর্মসংস্থান প্যাকেজের অধীনে কেরানির চাকরি পেয়েছিলেন। গত বৃহস্পতিবার তাকে মধ্য কাশ্মীরের বুদগাম জেলার চাদুরা শহরের তহসিল অফিসের ভিতরে সন্ত্রাসীদের দ্বারা গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল।

কেজরিওয়াল বলেন "একদল সন্ত্রাসী তার অফিসে ঢুকে তার নাম জিজ্ঞেস করে এবং সেখানে তাকে গুলি করে। এটি একটি পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের মতো মনে হয়েছিল যেখানে সন্ত্রাসীরা কাশ্মীরি পণ্ডিতকে হত্যা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। ঘটনার মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে ভারতীয় সেনাবাহিনী দুই সন্ত্রাসীকে হত্যা করেছে। কিন্তু আজ একটি প্রশ্ন জাতির সামন কেন আজও কাশ্মীরে কাশ্মীরি পণ্ডিতরা নিরাপদ নয়?"

কেজরিওয়াল বলেন “এই ঘটনার পর এই অঞ্চলে বসবাসকারী সমস্ত কাশ্মীরি পণ্ডিতরা সম্পূর্ণ আতঙ্কিত। যখন এই লোকেরা নৃশংস হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করার জন্য প্রতিবাদ করতে বেরিয়েছিল, তখন তাদের নৃশংস পদক্ষেপের মুখোমুখি হয়েছিল। তাদের থামানো হয়েছিল। তাদের কণ্ঠস্বরকে চাপা দেওয়া হয়। তাদের লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল করতে হয়েছে। তারা তাদের নিজ কলোনির মধ্যে তালাবদ্ধ ছিল। কেন? এটা মোটেও ঠিক নয়। এই কর্মকাণ্ডের পিছনে থাকা অফিসারদের অবিলম্বে বরখাস্ত করতে হবে।"

তিনি বলেন “কাশ্মীরি পণ্ডিতরা নিরাপত্তা চায়। তারা সেখানে নিরাপদ বোধ করে না। কাশ্মীরি পণ্ডিতরা যদি তাদের মাতৃভূমিতে যথাযথ নিরাপত্তা না পায় তাহলে সারা দেশে বসবাসকারী কাশ্মীরি অভিবাসীরা কীভাবে তাদের বাড়িতে পুনর্বাসন করবে? আইনশৃঙ্খলার চেয়ে বড় কোনো নিশ্চয়তা থাকবে না যা তাদের উপত্যকার পুনর্বাসনে অনুপ্রাণিত করবে।" 

তিনি যোগ করে বলেন “হাত জোড় করে আমি কেন্দ্রকে অনুরোধ করছি। অনুগ্রহ করে আপনি যা পারেন তা করুন এবং কাশ্মীরি পণ্ডিতদের একটি সম্মানজনক জীবনযাপন করতে সহায়তা করুন। এটির খরচ যতই হোক না কেন, প্রয়োজনীয় প্রতিটি বিধান অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে হবে। সারা দেশে বসবাসকারী কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উন্নতি ও পুনর্বাসনের জন্য আমাদের সকলকে একত্রিত হতে হবে।"

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad