সন্তানের নিরাপত্তার খুঁটিনাটি - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Saturday, 8 January 2022

সন্তানের নিরাপত্তার খুঁটিনাটি

 


আপনার বাড়িতে যদি একটি ছোট বাচ্চা থাকে তবে আপনি এটিকে আপনার বাড়িতে শিশু প্রমাণ করুন।  বেবি প্রুফ হোম মানে যেখানে শিশুর নিরাপত্তার যত্ন নেওয়া হচ্ছে।  বাড়িতে এমন অনেক জিনিস রয়েছে যা শিশুর ক্ষতির কারণ হতে পারে, অন্তত সেই আঘাত বা দুর্ঘটনা যাতে ঘরে না ঘটে, আপনার উচিৎ ঘরটিকে শিশুর জন্য নিরাপদ করা। ঘরে আগুনের সরঞ্জাম বা বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি শিশুদের থেকে দূরে রাখা, বারান্দা এবং বড় জানালা ও দরজা নিরাপদ রাখা, ধারালো বস্তুকে শিশুর নাগালের মধ্যে না আসতে দেওয়া ইত্যাদি বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।  এই নিবন্ধে, আমরা এমন 5 টি সতর্কতা সম্পর্কে কথা বলব যা আপনার শিশুর সাথে বাড়িতে নেওয়া উচিৎ।



 1. জানালা এবং বারান্দায় নিরাপত্তা জাল বসান

 আপনি যদি ফ্ল্যাটে থাকেন তবে আপনাকে খুব সতর্ক থাকতে হবে কারণ ফ্ল্যাটে উপস্থিত বারান্দা আপনার সন্তানকে সমস্যায় ফেলতে পারে।  প্রথমত, আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে বারান্দার রেলিংটি খুব নিচু না হয়, রেলিংয়ের উচ্চতা কম হলে শিশুর নীচে পড়ে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে, পাশাপাশি আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে রেলিংটি কি না। সিমেন্ট বা পাইপ বা লোহার আকৃতির কারণ পাইপের মধ্যে ফাঁকের কারণে শিশুর পড়ে যাওয়ার ভয়ও থাকবে, এমন একটি বারান্দায়, আপনার রেলিংয়ে একটি সুরক্ষা জাল লাগাতে হবে যাতে শিশুটি পড়ে যাওয়ার ভয় না পায়। আপনাকে মনে রাখতে হবে যে জানালায় একটি নেট আছে এবং জানালা সবসময় বন্ধ থাকে, অন্যথায় শিশুরা লাফ দিয়ে বা জানালা দিয়ে লাফ দিতে পারে।




 


 2. রাসায়নিক এবং ওষুধের ক্যাবিনেট লক করে রাখুন 




আপনার বাড়িতে যদি একটি ছোট বাচ্চা থাকে তবে আপনাকে সর্বদা সতর্ক থাকতে হবে।  আপনার মনে রাখা উচিৎ যে শিশুরা সহজেই ওষুধের মতো জিনিসগুলি গিলে ফেলতে পারে, তাই আপনাকে ওষুধের জন্য একটি পৃথক ক্যাবিনেট তৈরি করা উচিৎ এবং তা লক করে রাখা উচিৎ।  এ ছাড়া পরিষ্কার করার রাসায়নিক, ফিনাইল ইত্যাদি জিনিস বাড়িতে যে কোনো জায়গায় রাখা হয় এবং শিশুদের কাছে সহজে পৌঁছায়, এই রাসায়নিক দ্রব্য পান করলে শিশুর স্বাস্থ্যের অবনতি হতে পারে, তাই আপনার একটি আলাদা কেবিনেট তৈরি করা উচিৎ এবং এই সমস্ত রাসায়নিক শিশুদের কাছে সহজলভ্য করা উচিৎ। থেকে দূরে রাখা হবে  এসব রাসায়নিক শিশুর চোখে গেলে শিশুর চোখে জ্বালাপোড়া হতে পারে, এমন অবস্থায় শিশুর চোখ পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে শিশুকে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান।




 3. বৈদ্যুতিক প্লাগগুলিতে ল্যাচগুলি ইনস্টল করুন




 


 আপনার বাড়িতে অনেক জায়গায় বৈদ্যুতিক প্লাগ থাকবে, বাচ্চারা যখন হাঁটু গেড়ে বসে থাকে তখন এই প্লাগগুলোকে স্পর্শ করতে পারে, যার ফলে শিশুর বৈদ্যুতিক শক হতে পারে, তাই আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে সমস্ত পাওয়ার প্লাগ সেফটি ল্যাচ দিয়ে লাগানো আছে। প্লাগ আবৃত এবং শিশু এটি পেতে না। সেই সাথে খেয়াল রাখতে হবে টিভির তারের প্লাগ, যেমন, ফ্রিজ উপরের দেয়ালে লাগানো থাকে যাতে শিশুর হাত সহজে না পৌঁছায়। আপনার বাচ্চাকে এই ডিভাইসগুলি থেকে দূরে রাখতে হবে।




 


 4. ঘরে আসবাবপত্র কম




 আপনার বাড়িতে যদি বাচ্চা থাকে, তবে আপনাকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যে ঘরে অন্তত আসবাবপত্র আছে, অনেক সময় বাড়িতে এই আসবাবের কারণে শিশুর গুরুতর আঘাতের ঘটনা ঘটে, তাই আপনার যদি বাচ্চা হয় আপনার বাড়িতে তাহলে আপনার খেয়াল রাখা উচিৎ যে বাড়িটি যেন যতটা সম্ভব খালি থাকে।  অন্যদিকে ঘরে যদি এমন কোনো ড্রয়ার বা আলমারি থাকে যার দরজা খারাপ, তাহলে তা দ্রুত মেরামত করুন, এতে শিশুর হাত আটকে যেতে পারে।  অনেক সময় পুরানো আসবাবপত্রের পেরেক বা ফাঁদ শিশুর ত্বকে আটকে যায়, যার কারণে সংক্রমণের ঝুঁকি থাকে।  আপনাকে ডোজ অনুযায়ী শিশুর টিটেনাস টিকাও নিতে হবে।




 5. শিশুর নিরাপত্তার জন্য বাড়িতে ক্যামেরা ইনস্টল করুন




 আপনি যদি কাজ করেন তবে আপনার পক্ষে সব সময় শিশুর উপর নজর রাখা সম্ভব হবে না, তাই ঘরের প্রয়োজনীয় কোণায় ক্যামেরা লাগিয়ে রাখুন যাতে আপনি যে কোনও জায়গা থেকে শিশুকে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন।  বাথরুম বা টয়লেটে বেড়ে ওঠা ব্যাকটেরিয়া শিশুর স্বাস্থ্য নষ্ট করতে পারে।  সেই সঙ্গে বাথরুমে জল থাকার কারণে পিছলে যাওয়ার ও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার আশঙ্কাও থাকে, তাই বাথরুমের গেটে তালা লাগিয়ে রাখুন।  আপনার বাথরুম বা টয়লেটের দরজা সবসময় বন্ধ রাখা উচিৎ, শিশুকে বাথরুম বা টয়লেটের নাগাল থেকে দূরে রাখা জরুরি।




 যদি আপনার বাড়িতে একটি ছোট শিশু থাকে, তাহলে আপনার সবসময় বাড়িতে একটি প্রাথমিক চিকিৎসা কিট প্রস্তুত রাখা উচিৎ।  কিটে ব্যান্ডেজ, তুলা, জীবাণুনাশক, বেবি লোশন এবং ক্রিম রাখতে হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad