এই ট্রেনের নাম ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজে রয়েছে, কেন জানেন? - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Friday, 30 December 2022

এই ট্রেনের নাম ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজে রয়েছে, কেন জানেন?



 এটি দেশের সবচেয়ে ধীরগতির ট্রেন। জেনে নেওয়া যাক এর বিশেষত্ব -


 দারুণ ব্যাপার হল এই ট্রেন এতই ধীর গতিতে চলে যে এই ট্রেনের নামও ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।  এই ট্রেনের নাম 'মেট্টুপালয়াম উটি নীলগিরি প্যাসেঞ্জার ট্রেন'।


  এই ট্রেনটি পাহাড়ে চলে এবং ৩২৬ মিটার উচ্চতা থেকে ২২০৩ মিটার উচ্চতায় ভ্রমণ করে।  নীলগিরি মাউন্টেন রেলওয়ের অধীনে আসা এই ট্রেনটি ৫ ঘন্টায় ৪৫ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে এবং এই সময়ে এটি ১০০ টিরও বেশি সেতু এবং অনেক ছোট-বড় টানেলের মধ্য দিয়ে যায়।


 আশ্চর্যের কিছু নেই এই ট্রেনটি বছরের পর বছর ধরে এভাবেই চলছে।  সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী এই ট্রেনে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর সুবিধা রয়েছে।  এই ট্রেনটি ওয়েলিংটন, কেটি, কুনুর, আরাভাঙ্কডু এবং লাভডেল স্টেশনের মধ্য দিয়ে চলে।


আসলে, মেট্টুপালায়ম এবং কুনুরের মধ্যবর্তী রাস্তাটি এতই সুন্দর যে ২০০৫ সালে, জাতিসংঘের ইউনেস্কো এটিকে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের মর্যাদা দিয়েছে।  এই কারণেই মানুষ এই ট্রেনে ভ্রমণ করতে এবং সুন্দর নৈসর্গিক দৃশ্য উপভোগ করতে পছন্দ করে।


 একটি প্রতিবেদন অনুসারে, নীলগিরি মাউন্টেন রেলওয়ের নির্মাণ কাজ ১৭ বছরে শেষ হয়েছিল, যা ১৮৯১ সালে শুরু হয়েছিল।  তারপর থেকে আজ অবধি এই ট্রেনটি প্রতিদিন মেট্টুপালায়ম থেকে উটি রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত চলে।


 এই ট্রেনটি মেট্টুপালায়ম স্টেশন থেকে সকাল ৭:১০ টায় ছেড়ে যায় এবং দুপুর ১২ টায় উটিতে পৌঁছয়।  এরপর এটি দুপুর ২:০০ টায় উটি ছেড়ে এবং বিকেল ৫:৩০ টায় মেট্টুপালায়ম স্টেশনে পৌঁছয়।  পর্যটকরা এই ট্রেনটিতে যাত্রা করতে  উপভোগ করেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad