কীভাবে একজন ব্যক্তি কোমা, ডিপ কোমা বা ব্রেন ডেড অবস্থায় আসে? - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Thursday, 20 October 2022

কীভাবে একজন ব্যক্তি কোমা, ডিপ কোমা বা ব্রেন ডেড অবস্থায় আসে?



আমাদের মস্তিষ্ক ছোট কিন্তু এর কাজ অনেক। মস্তিষ্ক অকেজো হওয়া মানে কোমা, ব্রেন ডেড ও ডিপ কোমায় যাওয়া। এক ব্যক্তির এগুলো কখন হয়? কীভাবে একজন ব্যক্তি এই অবস্থায় পৌঁছয়? চলুন জেনে নেওয়া যাক -


  কোমা কী :

 এটি দীর্ঘায়িত অচেতন অবস্থা। ব্যক্তিকে দেখলে মনে হয় লোকটি বেঁচে আছে।  কিন্তু ঘুমের মত লাগছে।  কোমায় থাকা ব্যক্তির শ্বাস-প্রশ্বাস ধীরে ধীরে চলছে।  মস্তিষ্কে বিরল কার্যকলাপও দেখা যায়।  মস্তিষ্ক ছাড়া শরীরের অন্যান্য অঙ্গ যেমন কিডনি, লিভার, ফুসফুস, হার্ট ইত্যাদি কাজ করছে।  গুরুতর আঘাত, মস্তিষ্কে অত্যধিক রক্ত ​​​​প্রবাহ, অক্সিজেনের অভাব, বিষাক্ত টক্সিন জমা হওয়ার মতো অনেক অবস্থার কারণে একজন ব্যক্তি কোমায় চলে যায়।  


 ব্রেন ডেড এবং ডিপ কোমা কী :

 ব্রেন ডেড হওয়া মানে ব্রেন পুরোপুরি কাজ করা বন্ধ করে দেওয়া।  মস্তিষ্কে গুরুতর আঘাত, মস্তিষ্কে অক্সিজেনের অভাব, অতিরিক্ত রক্ত ​​​​প্রবাহের মতো প্রধান কারণগুলির কারণে এই অবস্থাটি ঘটে।  মস্তিষ্ক ছাড়া পুরো শরীর কাজ করছে।  ব্রেন ডেড রোগীদের শরীরের নড়াচড়া, শ্বাস-প্রশ্বাস, চোখের পুতুলও সাড়া দেওয়া বন্ধ করে দেয়।  অবিলম্বে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়।


 ভেন্টিলেটরের সাহায্যে রোগীর কিডনি, লিভার, হার্টসহ শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কাজ করছে।  এই অবস্থাকে বলা হয় ডিপ কোমা, অর্থাৎ ব্রেন ডেড বা ডিপ কোমার অবস্থা কোমার পরবর্তী স্টেজ।  নিউরোলজিস্টের মতে, একজন ব্রেন ডেড ব্যক্তির পক্ষে ভালো হওয়া খুবই কঠিন।   ২৪ ঘন্টা পরে যদি রোগীর প্রতিক্রিয়া একই থাকে তবে মস্তিষ্কের মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।


 ব্রেন ডেড হওয়ার কারণ :

  ব্রেন ডেড হওয়ার পেছনের কারণ  হল  মেডিসিনের হাইডোজ, বিষ, সাপের কামড়, মারাত্মক ব্রেন ইনফেকশন, অন্যান্য মানসিক রোগও ব্রেন ডেডের কারণ হতে পারে।  এর মধ্যে, ব্যক্তির সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা কিছুটা বেশি।  যদি কোন ভয়ানক দুর্ঘটনা ঘটে, মাথার অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয় বা গুরুতর স্টক, ব্রেন টিউমারের মতো পরিস্থিতি হয়, তবে সম্ভাবনা নগণ্য।


ব্রেন ডেড কেন হয়?

 ব্রেনস্টেম হল আমাদের মস্তিষ্কের পেছনের অংশের একটি অংশ যা ব্রেন স্টেমের সাথে সরাসরি যুক্ত।  এটি মেরুদণ্ডের সাথে সংযুক্ত থাকে।  মস্তিষ্কের মাঝখানে একটি অংশ থাকে, তাই একে মধ্য মস্তিষ্কও বলা হয়।  মস্তিষ্কের এই অংশটি আমাদের ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করে যেমন কথা বলা, পলক ফেলা, ব্যথা অনুভব করা, হাঁটা, শ্বাস নেওয়া, অভিব্যক্তি দেওয়া ইত্যাদি। ব্রেন স্টেম ডেড হলে ব্রেনও ডেড হয়ে যায়।  

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad