স্বামী -স্ত্রীর নিজস্ব সময়ে কি সংসারের চাপে শেষ হয়ে যাচ্ছে?তবে জেনে নিন কীভাবে একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পাবেন - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Wednesday, 12 January 2022

স্বামী -স্ত্রীর নিজস্ব সময়ে কি সংসারের চাপে শেষ হয়ে যাচ্ছে?তবে জেনে নিন কীভাবে একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পাবেন





 দাম্পত্য জীবনে সুখ বজায় রাখা সহজ কাজ নয়।  এক বয়সে অনেকে মনে করে যে তারা কারো প্রেমে পড়বে, তারপর বিয়ে করবে এবং জীবনের জন্য একটি সুখী পরিবার পাবে।  প্রতিটি দিন আনন্দে পূর্ণ হবে।  কিন্তু সঙ্গী যাই হোক না কেন, পরিবার একটি সহজ বিষয় নয়।  দুজনের মধ্যে সম্পর্কের মধ্যে আরও হাজারো চিন্তা প্রবাহিত হয়।


  কিন্তু এতে একটা আনন্দের ব্যাপার আছে।  বৈবাহিক পরিস্থিতি যতই কঠিন হোক না কেন, এটি ঠিক করার সুযোগ রয়েছে।  যদি দাম্পত্য জীবনে একঘেয়েমি থাকে, তাহলে কিছু কাজ সচেতনভাবে করা যেতে পারে।




দুজন নিজেদের  মধ্যে কথা বলুন নিজস্ব সময় বের করুন।  আপনি যদি এই উপদেশটি শুনেন, আপনি ভাববেন, স্বামী বা স্ত্রীর সাথে কথা বলা বন্ধ করে আবার সংসার শুরু করা যায় নাকি? যায় না কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে পৃথিবীর বিভিন্ন চিন্তা তাদের মনের কথা বলে না।  কখনও কখনও একে অপরের সাথে খোলামেলা কথা বলা গুরুত্বপূর্ণ।


  সংসারের হাজার হাজার খরচ।  বিশেষ করে শিশুদের যত্ন নেওয়া, বাড়ির বড়দের প্রতি কর্তব্যের মাঝে তাদের শখ পূরণের সুযোগ নেই।  কিন্তু একে অপরের শখের যত্ন নেওয়া যেতে পারে।  সুবিধার মতো ছোট উপহার কেনা যায় এবং সঙ্গীর জন্য আনা যায়।  




  সপ্তাহে অন্তত কয়েক ঘণ্টা শুধু নিজের জন্য আলাদা করে সময় রাখুন।  যে সব কাজ একে অপরের সাথে ভালো করে রাখে , তা যেন থেমে না থাকে।  একসঙ্গে সিনেমা দেখা, গান শোনা। আবার বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডাও হতে দিতে পারেন।


  সব সময় একসঙ্গে কাটা।  তারা উভয়েই তাদের আত্মবিশ্বাসের সাথে মোকাবিলা করে যখন তারা তাদের খেলার কার্যক্রম শুরু করে।  কিন্তু দৈনন্দিন রান্না করা, গৃহস্থালির খরচ হিসাব করার মতো সহজ কাজগুলো করতেও অনেক পরিশ্রম লাগে।  সেই দায়িত্ব পালনের জন্য মাঝে মাঝে একে অপরের প্রশংসা করুন।  এটি দম্পতির পরস্পরের প্রতি আস্থা বাড়ায়। এবং রোজ তার দায়িত্ব পালনের ইচ্ছাও বেড়ে যায়।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad