নতুন গবেষণায় প্রকাশীত হয়েছে,সিন্থেটিক জামাকাপড়, প্লাস্টিকের খেলনা কি বাড়াচ্ছে ক্যান্সারের ঝুঁকি?জেনে নিন - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Sunday, 9 January 2022

নতুন গবেষণায় প্রকাশীত হয়েছে,সিন্থেটিক জামাকাপড়, প্লাস্টিকের খেলনা কি বাড়াচ্ছে ক্যান্সারের ঝুঁকি?জেনে নিন





 আমাদের শরীরে প্রতিদিন ৭০০০ মাইক্রোপ্লাস্টিক কণা যাচ্ছে

 আপনিও যদি সিন্থেটিক কাপড় পরেন, বাড়িতে আসবাবপত্র ব্যবহার করেন বা আপনার শিশুরা খেলে, তাহলে সাবধান হন।  যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব পোর্টসমাউথের এক গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতিদিন আমাদের এবং ছোট শিশুদের শরীরে খেলনা ও জামাকাপড়ের ৭০০০ মাইক্রো প্লাস্টিকের কণা নিঃশ্বাস নেওয়া হচ্ছে।  যা তামাকের মতোই বিপজ্জনক।  ক্যান্সারের মতো মারণ রোগকেও আমন্ত্রণ জানাচ্ছে এসব কণা।




 এই রিপোর্টে সবচেয়ে বড় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে যে এই মাইক্রো প্লাস্টিকের কণার শরীরে পৌঁছানোর ক্ষমতা অনুমানের চেয়ে ১০০ গুণ বেশি।  গবেষণায় প্রথমবারের মতো জানা গেছে, ঘরের মধ্যেই আমাদের শরীরে এত পরিমাণ বিষ দ্রবীভূত হচ্ছে।





 প্লাস্টিকের কণা পাওয়া গেছে ৮ বছর বয়সী মেয়ের শরীরে

 সমীক্ষা অনুযায়ী, এই মাইক্রো প্লাস্টিকের কণার উপস্থিতি পাওয়া গেছে ৮ বছর বয়সী এক মেয়ের মধ্যে।  মেয়েটির বিছানা, কার্পেট এবং সমস্ত নরম খেলনা সিন্থেটিক উপাদান দিয়ে তৈরি।  গবেষকদের মতে, গবেষণার জন্য এই ধরনের যন্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিল, যা ১০ মাইক্রনের চেয়ে ছোট কণা সনাক্ত করতে পারে।  MicroRaman প্রযুক্তি মানুষের এক দশমাংশের সমান কণা পরিমাপ করতে পারে।  এই আকৃতির কারণে এরা সহজেই বাতাসে ভেসে বেড়ায়।  যারা বাড়ির রান্নাঘর ও বেডরুমে বেশি থাকেন।  শিশুদের বেডরুমে, এই কণাগুলি প্রতি মিনিটে গড়ে ২৮ হারে বাতাসে ভাসতে থাকে।




 এই কণাগুলো এখন পর্যন্ত পরিবেশের ক্ষতি করে আসছে।  এখন তারা স্বাস্থ্যেরও ক্ষতি করছে।  গবেষণায় বলা হয়েছে, এই মাইক্রোপ্লাস্টিক কণাগুলো এতই ছোট যে এগুলো ভেঙ্গে শরীরে পৌঁছায় না এবং মেটাবলিজমকে প্রভাবিত করে।  এই কণাগুলো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে।  প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব কণার কারণে উর্বরতাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।




 আমাদের দেশে কোটি কোটি মানুষ প্রতিদিন সিন্থেটিক কাপড় পরে এবং আসবাবপত্র বা প্লাস্টিকের তৈরি জিনিস ব্যবহার করে।  কোটি কোটি ভারতীয় শিশুও কৃত্রিম খেলনা দিয়ে খেলে।  দেশের খেলনার বাজারের কথা বললে, দেশে খেলনার বাজার প্রায় ১৬ হাজার কোটি টাকার, যার মধ্যে মাত্র ২৫ শতাংশই দেশীয়।  বাকি ৭৫ শতাংশের মধ্যে ৭০ শতাংশ পণ্য আসে চীন থেকে।  অন্য দেশ থেকে রপ্তানি হয় মাত্র ৫ শতাংশ।  এমন পরিস্থিতিতে এখানেও প্রতিদিন কোটি কোটি শিশু নরম খেলনা ব্যবহার করে।




 


 মাইক্রো প্লাস্টিকের কণা শরীরের জন্য ক্ষতিকর

 শারদা হাসপাতালের রেসপিরেটরি মেডিসিনের এইচডি ডাক্তার শৈলেন্দ্র নাথ গৌর বলেন, "মাইক্রোপ্লাস্টিক কারণ শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।  এই কণাগুলো ধূলিকণা আকারে আমাদের শরীরে প্রবেশ করে।"  তবে, তিনি দ্বিমত করেন যে প্রতিদিন প্রায় ৭০০০ শিশুর শরীরে বায়ুতে উপস্থিত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্লাস্টিকের কণার আকারে প্রবেশ করছে।  তাদের বিশ্বাস, প্লাস্টিক পোড়ানো হলে বা কোনও শহরে দূষণ থাকলে তার মাধ্যমে তা অবশ্যই শরীরের ভেতরে যেতে পারে।


 বর্তমানে এই গবেষণাটি ব্রিটেনে অনেক আলোচিত হচ্ছে এবং এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হচ্ছে।  গত কয়েক বছরে বিশ্বের অনেক দেশই পরিবেশ ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে সচেতন ও সচেতন হয়েছে।  ব্রিটেনের কনজারভেটিভ পার্টির এমপি এবং মাইক্রোপ্লাস্টিক বিষয়ক সংসদীয় দলের প্রধান আলবার্তো কস্তাও এই গবেষণাকে গুরুত্বপূর্ণ বলেছেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad