আপেল ভিনেগারের গুনাগুণ - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Thursday, 28 October 2021

আপেল ভিনেগারের গুনাগুণ



আপেলের গুণাগুণ সম্পর্কে আমরা সবাই নিশ্চয়ই অবগত, কি আপেলের ভিনেগারের গুরুত্ব কী, তা কি জানেন?আপেল সিডার ভিনেগারের টক স্বাদের কারণে, এটি ক্লিনজিং এজেন্ট এবং প্রতিষেধক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।  আপেল ভিনেগারে অ্যাসিটিক অ্যাসিড থাকে, যা ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া এবং খাদ্যনালীর ছাঁচ দূর করতে অনেক সাহায্য করে।


 এটি খাদ্য হজমে সাহায্য করে এবং অন্ত্রের পুষ্টি শোষণ করে।  আপেল ভিনেগারে পেকটিন থাকে, জলে দ্রবণীয় ফাইবার হিসেবে উপস্থিত থাকে এবং পাচনতন্ত্র থেকে এবং শরীর থেকে জল, চর্বি, টক্সিন এবং কোলেস্টেরল শোষণ করতে সাহায্য করে।


 খনিজ সমৃদ্ধ: আপেল ভিনেগারে রয়েছে পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং অন্যান্য অনেক খনিজ লবণ।  পটাশিয়াম শরীরের জলের ভারসাম্য নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি হার্টবিট নিয়ন্ত্রণ করে।  ম্যাগনেসিয়াম বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় অনুঘটক হিসেবে কাজ করে, যা হজমে সহায়তা করে এবং ক্যালসিয়ামের শোষণ বাড়িয়ে সুস্থ হাড় গঠনে সাহায্য করে।


 ব্লাড সুগার কমাতেও খুব কার্যকর: আপেল  ভিনেগারে অ্যাসিটিক অ্যাসিড থাকে, যা স্টার্চের হজম প্রক্রিয়াকে ধীর করে দেয়, যার ফলে রক্তনালীতে চিনির মাত্রা কমে যায়।  রক্তে উপস্থিত চিনি ৪ থেকে ৩৫%হ্রাস করে।


 কোলেস্টেরল কমাতেও সহায়ক: আপেল সিডার ভিনেগারে পেকটিনের উপস্থিতি শরীরের বর্জ্য কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।  অনেকের পেকটিনে অ্যালার্জি থাকে, তাই তাদের আপেল ভিনেগার এড়িয়ে চলা উচিৎ ।


 ত্বক এবং সৌন্দর্যে: আপেল ভিনেগার একটি অ্যাস্ট্রিনজেন্ট, যার কারণে এটি মুখ এবং গলার ত্বককে সুস্থ রাখে।


 ওজন কমাতে উপকারী: আপেল ভিনেগারের সাথে রক্তে শর্করার নিয়ন্ত্রণের কারণে এটি ওজন কমাতে সহায়ক।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad