হার্টের সমস্যা প্রতিরোধে ছয়টি ডায়েট টিপস - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Saturday, 24 September 2022

হার্টের সমস্যা প্রতিরোধে ছয়টি ডায়েট টিপস



সারা বিশ্বে মোট ১৭.৯ মিলিয়ন মানুষের মৃত্যু হয় কার্ডিওভাসকুলার রোগের কারণে। এই কারণেই আপনার হৃদয়কে সুস্থ রাখা এত গুরুত্বপূর্ণ। হৃৎপিণ্ড সারা শরীরে রক্ত ​​পাম্প করে এটি সক্রিয় রাখে। একটি সুস্থ হৃদয় আপনার মস্তিষ্ক এবং শরীরকে শক্তিশালী এবং সক্রিয় রাখে। আমাদের প্রত্যেকের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর এবং সুখী খাদ্যের জন্য স্বাস্থ্যকর ডায়েটে চলে যাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একটি সুস্থ হার্টের জন্য আপনাকে অনুসরণ করতে হবে এমন কয়েকটি ডায়েট টিপস যা এখানে রয়েছে:

শাকসবজি এবং ফল খান- শুধু শাকসবজি এবং ফলমূলে কম ক্যালোরিই নয়, এতে গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিন এবং খনিজ উপাদানও রয়েছে যা আপনার দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজন। আপনার ক্যালরি গ্রহণ মোটামুটি ভারসাম্যপূর্ণ তা নিশ্চিত করার সময় তারা আপনাকে পূর্ণ রাখে। তার চেয়েও বেশি এগুলি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পূর্ণ যা রক্ত ​​থেকে মুক্ত র্যাডিকেলগুলি সরিয়ে দেয় এবং নিশ্চিত করে যে কোনও অক্সিডেশন ঘটে না, আপনার শরীরের টিস্যু এবং হৃদয়কে রক্ষা করে।

বেশি করে ফাইবার খান- আপনি হয়তো জানেন ফাইবারের প্রধান সুবিধা হজমে সাহায্য করে। যদিও এটি সত্য ফাইবার আপনার হৃদয়কে শক্তিশালী এবং সুস্থ রাখতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। দ্রবণীয় ফাইবার যা আপনি বেরি, ওটস, বাদাম এবং আপেলের মতো খাবার থেকে পেতে পারেন, রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে। এটি আপনার হার্টের উপর চাপ কমায় এবং এটিকে শক্তিশালী রাখে।

লো-ফ্যাট ডেইরি- পুরো দুধ এবং এটি থেকে তৈরি অন্যান্য দুগ্ধজাত দ্রব্য স্যাচুরেটেড ফ্যাট সমৃদ্ধ। এই চর্বিগুলি আপনার ধমনীগুলিকে লাইন করে এবং তাদের ব্লক করে। আপনি আপনার নিয়মিত খাদ্যতালিকায় কম চর্বিযুক্ত দুগ্ধজাত খাবার যোগ করে এটি মোকাবেলা করতে পারেন, যেমন স্কিমড মিল্ক, কম চর্বিযুক্ত চিজ এবং গ্রীক দই।

ট্রান্স ফ্যাটের দিকে শিফট করুন- সব ফ্যাট আপনার হার্টের জন্য খারাপ নয়। অসম্পৃক্ত চর্বি আপনার হৃদয়ের স্বাস্থ্য উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। আপনি জলপাই, অ্যাভোকাডো, চিনাবাদাম মাখন এবং বাদামের মতো খাবার থেকে অসম্পৃক্ত চর্বি পেতে পারেন। অসম্পৃক্ত চর্বিগুলির একটি মূল সুবিধা হল কোলেস্টেরল কমাতে তাদের সাহায্য।

আপনার নড়াচড়া বাড়ান- আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণ করা আপনার হার্টের স্বাস্থ্য নিশ্চিত করার চাবিকাঠি। ওজন বাড়ানো আপনার হার্টে আরও চাপ বাড়াতে পারে, যা চেক না করলে সমস্যা হতে পারে। প্রতিদিন ৩০ মিনিটের ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন, মাঝারি বা দ্রুত গতিতে। আপনি শুধু ওজন হারাবেন না, আপনি আপনার হৃদয়কে শক্তিশালী করবেন।

অ্যালকোহল গ্রহণ সীমিত করুন- অতিরিক্ত বা নিয়মিত অ্যালকোহল গ্রহণ আপনার ওজন বাড়াতে পারে, যা আপনার হৃদয়ে চাপ বাড়ায়। আপনার অ্যালকোহল গ্রহণ সীমিত করুন এবং যতটা সম্ভব কম খাওয়ার চেষ্টা করুন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad