শ্রীকৃষ্ণ রাতে আসেন এই মন্দিরে - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Sunday, 13 November 2022

শ্রীকৃষ্ণ রাতে আসেন এই মন্দিরে

 


সারা পৃথিবীর মধ্যে হিমাচল প্রদেশে রয়েছে শ্রী কৃষ্ণের একটি বিশেষ মন্দির। এই মন্দিরটি হিমাচলের নুরপুরের প্রাচীন দুর্গের মাঠে অবস্থিত।

এই একমাত্র মন্দির যেখানে রাধার সাথে নয় মীরা বাইয়ের সাথে শ্রী কৃষ্ণের মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে।  এই দুটি মূর্তিই এতটাই অতিপ্রাকৃত এবং আকর্ষণীয় যে দেখলেই ইচ্ছে পূরণ হয়ে যায়।    জন্মাষ্টমীর দিনে এই মন্দিরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। জেনে নেওয়া যাক এই মন্দির সম্পর্কে -


 মন্দিরের ইতিহাস:

 এটি ১৬২৯ থেকে ১৬২৩ খ্রিস্টাব্দের  চিতোরগড়ের রাজার আমন্ত্রণে নুরপুরের রাজা জগৎ সিং তাঁর রাজ পুরোহিতের সাথে এখানে আসেন।  প্রাসাদের পাশে যেখানে রাজা জগৎ সিং এবং তার পুরোহিতদের রাতে থাকার জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছিল, তার পাশে ছিল একটি মন্দির।


 রাতে রাজা সেই মন্দির থেকে পায়ের তোরা ও গানের আওয়াজ শুনতে পান।  রাজপ্রাসাদের জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে তিনি দেখেন, মন্দিরের এক মহিলা ঘরে শ্রীকৃষ্ণের মূর্তির সামনে গান গাইছেন।  সেই মন্দিরে শ্রীকৃষ্ণ ও মীরার মূর্তি ছিল বাস্তব।  নুরপুরের রাজা পুরো ঘটনাটি তার পুরোহিতদের জানালে ফেরার সময় তিনি এই মূর্তিগুলো উপহার হিসেবে চাইলেন।  চিতোরগড়ের রাজা মূর্তিগুলি উপহার দিয়ে দেন।   এরপর নুরপুরের রাজা মন্দিরে এই দুটি মূর্তি স্থাপন করেন।


 বিশ্বাস করা হয় যে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ প্রতি রাতে এই মন্দিরে আসেন।  এই মন্দিরে প্রতিদিন পূজো হয় এবং রাতে মন্দিরের দরজা বন্ধ থাকে।  মন্দির বন্ধ করার আগে প্রতিমার সামনে বিছানা,  পাদুকা এবং জল ভর্তি গ্লাস রাখা হয়।  সকালে মন্দিরের দরজা খুললে বিছানায় ভাঁজ পড়া আর জল ভর্তি গ্লাস পড়ে থাকতে দেখা যায়।  বিশ্বাস করা হয় যে শ্রীকৃষ্ণ ও মীরাবাই এখানে রাতে বিশ্রাম নেন।


No comments:

Post a Comment

Post Top Ad