বন্ধুত্বপূর্ণ দেশগুলি পাকিস্তানকে ভিক্ষার বাটি সহ একটি জাতি হিসাবে দেখে: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Friday, 16 September 2022

বন্ধুত্বপূর্ণ দেশগুলি পাকিস্তানকে ভিক্ষার বাটি সহ একটি জাতি হিসাবে দেখে: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী



পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ বলেন যেই দেশগুলির সঙ্গে পাকিস্তানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বা বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে তারা দেশটিকে ভিক্ষার বাটি দিয়ে জাতি হিসাবে দেখতে শুরু করেছে। এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ একটি আইনজীবী সম্মেলনে ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন “আজ যখন আমরা কোনো বন্ধুত্বপূর্ণ দেশে যাই বা ফোন করি তারা মনে করে আমরা টাকা ভিক্ষা চাইতে এসেছি।"

শরীফ আরও যোগ করে বলেন"৭৫ বছর পর পাকিস্তান আজ কোথায় দাঁড়িয়ে আছে? এমনকি ছোট অর্থনীতিও পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে এবং আমরা গত ৭৫ বছর ধরে ভিক্ষার বাটি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি,” তিনি ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন সরকারকে ভুল অর্থনৈতিক পদক্ষেপ গ্রহণ এবং দেশকে সংকটের দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য দায়ী করেন। তিনি বলেন যে তার পূর্বসূরি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে চুক্তি লঙ্ঘনের কারণে তার সরকার ঋণদাতার সাথে কঠোর শর্তে একমত হতে বাধ্য হয়েছিল। 

পাকিস্তান শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে আইএমএফ কর্মসূচি ত্যাগ করার হুমকির দিকেও ইঙ্গিত করেছেন তিনি। এরপর তিনি দাবি করেন যে তার সরকার পাকিস্তানকে অর্থনৈতিক পতনের দ্বারপ্রান্ত থেকে ফিরিয়ে এনেছে।তবে আন্তঃব্যাংক বাজারে ডলারের বিপরীতে PKR1.56 কমে যাওয়ায় পাকিস্তানি রুপির পতন অব্যাহত রয়েছে। পাকিস্তানি রুপির 0.66% অবমূল্যায়ন হয়েছে এবং ডলার প্রতি PKR235.88 এ বন্ধ হয়েছে। তারা এই পতনের জন্য শেহবাজ শরীফ সরকারের এক্সচেঞ্জ কোম্পানির বিধি-বিধানকে দায়ী করেছে যার কারণে লোকেরা এক্সচেঞ্জ কোম্পানিতে আসার পরিবর্তে গ্রে মার্কেট থেকে ডলার কিনছে।

বার্তা সংস্থা ডনের সঙ্গে কথা বলার সময় এক্সচেঞ্জ কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশন অফ পাকিস্তান (ইক্যাপ) এর সাধারণ সম্পাদক জাফর পরচা বলেন যে পাকিস্তানি রুপি চাপের সম্মুখীন হচ্ছে কারণ বন্ধুত্বপূর্ণ দেশগুলি, যারা অর্থ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তারা তা করেনি।" তিনি বলেন "আস্থার ঘাটতির কারণে পাকিস্তান সাহায্য পাচ্ছে না।"

তিনি বন্যাকেও দোষারোপ করেছেন কিন্তু বলেছেন যে পাকিস্তানের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বাজারের মনোভাব বদলে দিয়েছে। পাকিস্তান ভিত্তিক কোম্পানি টপলাইন সিকিউরিটিজের সিইও বার্তা সংস্থা ডনকে বলেন যে পাকিস্তানের চলতি হিসাবের ঘাটতি না কমানো বা বন্ধুত্বপূর্ণ দেশগুলি থেকে প্রবাহ না পাওয়া পর্যন্ত রুপি চাপের সম্মুখীন হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad