কলকাতায় দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Friday, 6 May 2022

কলকাতায় দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর



রাজ্য সফরের দ্বিতীয় দিনে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে অবস্থিত তিন বিঘা করিডোর পরিদর্শন করবেন এবং বিএসএফ কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করবেন।  দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের কর্মসূচীও রয়েছে তাঁর।


এদিন , স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ   কোচবিহার জেলায় তিন বিঘা করিডোর পরিদর্শন করবেন।  এটি লক্ষণীয় যে টতিন বিঘা করিডোর দেশের সেই অংশ যা ২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যোগে দেশে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল।


  তাস বা দাবা খেলায় ভারত ও বাংলাদেশের রাজাদের মধ্যে জিতে যাওয়া জমির বেশিরভাগই ছিল সীমান্তের ওপারে, যেটি স্বাধীনতার পর থেকে দেশের ভূখণ্ড বাংলাদেশের মধ্যে বাংলাদেশ করিডোর হয়েছে। 


তিন বিঘা থেকে ফিরে কলকাতায় যাবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।  বিকেলে সেখানে দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন এবং মতবিরোধের লড়াইয়ে থাকা বিজেপি দলের নেতাদের সমস্যার সমাধান করবেন।


  সন্ধ্যায় ভিক্টোরিয়ায় দুর্গাপূজা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।  আর এদিনই সন্ধ্যায় বিসিসিআই সচিব সৌরভ গাঙ্গুলীর বাড়িতে গিয়ে ডিনার করবেন।


 দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কলকাতায় এক বছর পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে বিমানবন্দরে জমকালো স্বাগত জানানোর প্রস্তুতি চলছে।  কলকাতা বিমানবন্দরে অমিত শাহকে স্বাগত জানানো হয়েছে।  স্বাগত জানাতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছেন বিজেপি কর্মীরা।


 শুক্রবার দুপুর ২টায় বিমানবন্দর থেকে হোটেল ওয়েস্টিনে বঙ্গ ভারতীয় জনতা পার্টির সাংসদ, বিধায়ক এবং রাজ্যের পদাধিকারীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এদিন সন্ধ্যা ৬টায় কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল প্যালেসে অনুষ্ঠেয় সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন, যেখানে সৌরভ গাঙ্গুলীর স্ত্রী ডোনা গাঙ্গুলিও পারফর্ম করবেন।


 স্থানীয় নেতাদের মতে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আরও কিছু কর্মসূচি কলকাতায়ও হতে পারে।  সন্ধ্যায় ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানের পর তিনি বিজেপি এবং আরএসএস অফিসে যেতে পারেন।


 তিন বিঘা করিডোর সংক্রান্ত সবচেয়ে বড় চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে ঢাকায়।  দেশের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছিল। 


এই চুক্তির আওতায় ভারত কর্তৃক ১৭৮ x ৮৫ বর্গমিটারের একটি জমি বাংলাদেশকে ৯৯ বছরের জন্য লিজে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।  যদিও এ অঞ্চলের ভারতীয় জনগণ তিন বিঘা করিডোর দিয়ে বাংলাদেশিদের চলাচলে কোনো বিধিনিষেধ ছাড়া সন্তুষ্ট নয়, বিশেষ করে কুখলীবাড়ি এলাকায় বসবাসকারী জনগণ তিন বিঘা করিডোর দিয়ে বাংলাদেশিদের চলাচলের সময় বেশি সমস্যায় পড়েন।  ২৬ জুন, ভারতীয়রা তিন বিঘা আন্দোলনে শহীদ দুই আন্দোলনকারীর স্মরণে শহীদ দিবস পালন করে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad