আয়ুর্বেদই দিবে কোমল ত্বক - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Wednesday, 3 November 2021

আয়ুর্বেদই দিবে কোমল ত্বক



 গ্রীষ্মে মুখের যত্ন নেওয়া যতটা জরুরি, শীতকালেও ততটা জরুরি।  কারণ গরমের সময় গরম পরিবেশ আপনার ত্বককে ঝলসে দিয়ে প্রাণহীন করে তোলে।  এই সময়ে ত্বকের যত্নে বাজারে পাওয়া যায় এমন স্কিন ট্রিটমেন্ট বা স্কিন কেয়ার ক্রিমের পরিবর্তে ত্বকের যত্নে ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করলে ত্বকের সমস্যা তাড়াতাড়ি কমবে।  আজ আমরা আপনাকে আয়ুর্বেদিক প্রতিকার সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি যা ত্বকের টোন বজায় রাখে।  তো চলুন জেনে নিই তাদের সম্পর্কে



 হলুদ



 হলুদের উপকারী উপকারিতা সবারই জানা।  তাই কয়েকশ বছর আগে থেকে আজ পর্যন্ত হলুদকে ওষুধ হিসেবে গণ্য করা হয়।  হলুদ ত্বকের জন্য প্রাকৃতিক ফেসপ্যাক হিসেবে কাজ করে।  এটি মুখে একটি বিশেষ আভা দেয়।  এই কারণেই বিয়ের আগে বর-কনের ত্বকে হলুদের পেস্ট লাগানো হয়।  এছাড়াও অনেক মহিলাই মুলতানি মাটির সাথে হলুদ মিশিয়ে মুখে লাগান সুন্দর দেখাতে এবং প্রাকৃতিক আভা পেতে।  পার্লারে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটিয়ে মেক-আপ করলেও স্বাভাবিকভাবেই মুখ উজ্জ্বল হয় না।  কিন্তু হলুদ দিয়ে ঘরেই তৈরি করা যায় গোল্ড ফেসিয়াল।  এতে আপনার ত্বক উজ্জ্বল হবে এবং আপনি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনুভব করবেন।



 আমলা



 আমলাকে প্রতিটি মিশ্রনের ওষুধও বলা হয়।  প্রাচীন আয়ুর্বেদিক পদ্ধতিতে আমলা প্রায় পাঁচ হাজার বছর ধরে বহু রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে।  এর নিয়মিত সেবন হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, পাইলস, আলসার, হাঁপানি, ব্রঙ্কাইটিস এবং ফুসফুসের রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে।  আমলা সেবনে বার্ধক্য দূর হয়।  পরিপাকতন্ত্র সুস্থ থাকে, দৃষ্টিশক্তি, স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়, ত্বক ও চুল পুষ্টি পায়।  বিশেষজ্ঞদের মতে, আমলা পাউডার দীর্ঘজীবনের জন্য রাতে ঘি, মধু বা জলের সঙ্গে খাওয়া উচিৎ।  একইভাবে ৩ থেকে ৬ গ্রাম আমলার গুঁড়া নিয়ে দুধে দুই চামচ মধু ও এক চামচ ঘি মিশিয়ে দিনে দুইবার পান করুন, আপনি তরুণ থাকবেন।




 চন্দন



 শীতল চন্দন (চন্দন বা চন্দন) গ্রীষ্মে ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত প্রতিকারগুলির মধ্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  ত্বকে চন্দন লাগালে তা শীতল করে এবং এমনকি ব্রণ কমাতে এবং দাগ কমাতে সাহায্য করে।  এক চা চামচ চন্দন গুঁড়ো, এক চা চামচ হলুদ এবং কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।  এই ফেস মাস্কটি সপ্তাহে একবার বা দুবার মুখে লাগান।



 দই



 দইয়ে উপস্থিত ভিটামিন ই, জিঙ্ক এবং ফসফরাস ত্বকের বর্ণ বাড়ায়।  এটি আপনার ফেসপ্যাকে মিশিয়ে নিন বা খালি দই দিয়ে মুখে দুই মিনিট ম্যাসাজ করুন।  সবচেয়ে ভালো ফেসপ্যাক হল বেসন ও লেবুর মধ্যে দই মিশিয়ে সপ্তাহে দুবার মুখে লাগান।


 আয়রন সমৃদ্ধ খাবার

 ভিটামিন সি-এর পাশাপাশি আয়রন খাওয়ারও খেয়াল রাখতে হবে।  আয়ুর্বেদ অনুসারে, আপনার সবসময় মৌসুমি ফল খাওয়া উচিৎ।  শীতকালে আপনি গাজর এবং  অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।  এর পাশাপাশি গরমের কথা ভাবলে ডালিমের জুস খান।  আয়রন একটি প্রাকৃতিক রক্ত ​​পরিশোধক যা ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতে সহায়ক।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad