সন্তানকে মানুষের মত মানুষ করতে মেনে চলুন চাণক্য নীতি - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Wednesday, 27 October 2021

সন্তানকে মানুষের মত মানুষ করতে মেনে চলুন চাণক্য নীতি



  চাণক্য নিজে একজন যোগ্য শিক্ষক ছিলেন।  চাণক্য বিখ্যাত তক্ষশীলা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষা গ্রহণ করেছিলেন, পরে তিনি সেখানে শিক্ষকও হন এবং ছাত্রদের শিক্ষিত করা শুরু করেন।  আচার্য চাণক্য বিশ্বাস করতেন যে শিশুদের শিক্ষার পাশাপাশি ভাল মূল্যবোধ থাকা উচিৎ।  সংস্কৃতি ছাড়া শিক্ষার কোনও গুরুত্ব নেই।  সংস্কৃতির মাধ্যমেই শিক্ষার গুরুত্ব বাড়ে।



 চাণক্যের মতে, শিশুরা যখন ছোট হয়, তখন তাদের চারপাশের জিনিসগুলি বোঝার প্রবল ইচ্ছা থাকে।  শিশুরা তাদের চারপাশে ঘটতে থাকা জিনিসগুলির সঙ্গে খুব দ্রুত মানিয়ে নেয়।  যার কারণে কখনও কখনও তারা এমন অভ্যাসও গ্রহণ করে যা সময়মতো অপসারণ না করা একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়।  তাই প্রথম থেকেই শিশুদের মধ্যে সঠিক ও অন্যায়ের বোধ জাগ্রত করা উচিৎ।  মনে রাখবেন, শিশুরা তাদের পিতামাতার জন্য সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হয়।  অতএব, পিতামাতার উচিৎ সবসময় শিশুদের সামনে উচ্চ আচরণ উপস্থাপন করা।



 

 এর মানে হল যে পিতা -মাতার উচিৎ পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত সন্তানকে ভালবাসা এবং আদর করা।কারণ এই বয়স পর্যন্ত শিশুটি নির্দোষ।  সম্পর্কের পাশাপাশি সে জাগতিক জিনিসের প্রতি আসক্তি তৈরি করতে শুরু করে।  দশ বছর বয়সে, সে জেদ করতে শেখে এবং ভুল কাজের প্রতি আকৃষ্ট হতে শুরু করে।  এখান থেকেই শুরু হয় পিতামাতার দায়িত্ব।  দশ বছর বয়স থেকেই শিশুকে তিরস্কার করা, বাধা দেওয়া এবং বোঝানো শুরু করা উচিৎ।  যেহেতু শিশু ষোল বছর পূর্ণ করে, তার সঙ্গে বন্ধুত্বের অনুভূতি গ্রহণ করা উচিৎ।  সে ভুল করলে তাকে বন্ধুর মতো বুঝিয়ে বলা উচিৎ।




 শিশু যখন জেদ করে: শিশু যখন কোনও কিছুর জন্য জেদ করা শুরু করে, তখন তার জেদ পূরণ করা উচিৎ নয়।  একবার জেদ পূর্ণ হলে, শিশু বারবার একই কর্ম গ্রহণ করবে।  তাই তাকে বোঝান এবং অন্যান্য শৈল্পিক কাজে তার মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করুন।



 দুষ্টু হলে কী করবেন: শিশুরা দুষ্টুমি ছাড়া বাঁচতে পারে না।  পণ্ডিতরা বিশ্বাস করেন দুষ্টুমি করলে শিশুদের মস্তিষ্ক বিকশিত হয়।  তবে খেয়াল রাখবেন দুষ্টুমির কারণে যেন কোনও ক্ষতি না হয়।



 শিষ্টাচারের যত্ন নিন: চাণক্যের মতে, শিশুদের ক্ষেত্রে শিষ্টাচারের বিশেষ যত্ন নিন।  বাড়ির পরিবেশ এমন হওয়া উচিৎ যাতে শিশুরা আরও ভালো হওয়ার অনুপ্রেরণা পায়।  শিশুদের মধ্যে শৃঙ্খলা এবং নৈতিক গুণাবলীর চেতনা বিকাশ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad