পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু রাজস্থানের এই হাভেলি - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Sunday, 17 October 2021

পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু রাজস্থানের এই হাভেলি

 


রাজস্থান পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। প্রতি বছর হাজার হাজার বিদেশী পর্যটক এখানে বেড়াতে আসেন। যাইহোক, করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে এই বছর খুব বেশি পর্যটক আসছেন না। এই রাজ্যে এমন অনেক শহর আছে যা বিশ্বজুড়ে পরিচিত তাদের ঐতিহ্যের জন্য।


 কথিত আছে যে, দ্বাপর যুগে মহাভারত যুদ্ধের পর প্রচুর সংখ্যক যাদব এখানে বসতি স্থাপন করেছিলেন।  দ্বাদশ শতাব্দীতে যদুবংশীরা এই শহরটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।  রাজা রাওয়াল জয়সাল ১১৫৬ সালে জয়সালমীর দুর্গ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। শহরটি সুন্দর হাভেলি, জৈন মন্দির এবং দুর্গের জন্য বিশ্ব বিখ্যাত।  এই কারণে জেসালমিরের নাম ইউনেস্কোতে নিবন্ধিত।



  এটি জিন্দা দুর্গ নামেও পরিচিত কারণ বিশ্বজুড়ে অনেক সুন্দর হাভেলি হোটেলগুলিতে রূপান্তরিত হয়েছে, কিন্তু জয়সালমীর দুর্গ এখনও তার প্রাচীন রূপে বিদ্যমান।  বর্তমানে এই দুর্গের ভিতরে t

হাজারেরও বেশি মানুষ বসবাস করে যারা পর্যটনের মাধ্যমে তাদের জীবিকা নির্বাহ করছে।  যেখানে ১ হাজারেরও বেশি মানুষ বিনামূল্যে দুর্গে বসবাস করে।  তাদের বসবাসের জন্য ভাড়া দিতে হয় না।


 আপনি এটা জেনে অবাক হতে পারেন, কিন্তু এটা সত্যি। ঐতিহাসিকদের মতে, রাজা রাওয়াল জয়সাল সেবিকদের সেবায় খুব সন্তুষ্ট ছিলেন।  এর পর তিনি পরিচারকদের ১৫০০ ফুট লম্বা দুর্গ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।  সেই সময় থেকে এখন পর্যন্ত সেবাদারের বংশধররা জয়সলমীর দুর্গে মুক্তভাবে বসবাস করেন।


 যদি আমরা দুর্গের কথা বলি, তাহলে এটি ১৬,০৬২ বর্গমাইল জুড়ে বিস্তৃত। যেখানে ৯৯ টি বুরুজ আছে যা ২৫০ ফুট লম্বা।  দুর্গের দেয়াল হলুদ বেলেপাথর দিয়ে তৈরি এবং ছাদ প্রায় ৩ ফুট কাদা দিয়ে ঢাকা।  এটি গরমের দিনে স্বস্তি দেয়।  এই দূর্গে জাল জানালা আছে, যার মাধ্যমে দুর্গের ভিতরে বাতাস আসে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad