জানেন কি মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য একা সময় কাটানো কতটা গুরুত্বপূর্ণ - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Tuesday, 26 October 2021

জানেন কি মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য একা সময় কাটানো কতটা গুরুত্বপূর্ণ

 


আজকাল ব্যস্ততার জীবনে আমরা নিজের জন্য ভাবতে বা কিছু করতে পারিনা। নিজেকে গুরুত্ব না দিয়ে অন্যরা কি করছে, কি ভাবছে তাই নিয়ে থাকি বা বলা যায় তাই নিয়েই থাকতে ভালোবাসি।



 বেশিরভাগ মানুষ বিশ্বাস করেন যে সামাজিকীকরণ মানসিক চাপ দূর করতে সাহায্য করে।  অবশ্যই, এতে কোন ক্ষতি নেই, তবে নিজের সাথে কীভাবে সময় কাটানো অনেক ক্ষেত্রে উপকারী।



মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলেন, 'একা সময়' মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তবে অন্যান্য মানুষের আশেপাশে থাকার অনেক সুবিধা রয়েছে, তবে কখনও কখনও এটি উত্তেজনাও সৃষ্টি করে।  এর কারণ লোকেরা কী ভাবছে, তা নিয়ে আপনি উদ্বিগ্ন, আপনি প্রত্যাখ্যান এড়াতে এবং বাকি গোষ্ঠীর সাথে খাপ খাইয়ে নিতে আচরণ পরিবর্তন করা হয়।


 ডাক্তারদের মতে, 'একাকীত্ব' এবং 'একা থাকা'র মধ্যে পার্থক্য আছে।  তাঁরা জানান যে একাকীত্ব নেতিবাচকতা এবং বঞ্চিত হওয়ার অনুভূতির সাথে জড়িত। তবে যখন একা থাকা নিজের সাথে আরও আরামদায়ক হতে সহায়তা করে। এবং এটি আপনাকে একজন ব্যক্তি হিসাবে আপনি কে তা জানতে  আরও বেশি সহায়তা করে।






 কীভাবে 'একা সময় কাটানো' মানসিকভাবে সাহায্য করে?



 ১. ব্যক্তিগত অনুসন্ধান:-


 নিজের সাথে সময় কাটানো আপনাকে আপনার পছন্দ -অপছন্দ বুঝতে সাহায্য করে।  আপনি কেন একটি নির্দিষ্ট ভাবে আচরণ করবেন তা জানতে পারবেন।





 ২. সৃজনশীলতা:-


 সৃজনশীলতা মানসিক স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য একটি দুর্দান্ত হাতিয়ার।  একটি শখের উপর সময় ব্যয় করা এবং নতুন কিছু করার জন্য নিজের মনকে  ভাল করানোর জন্য একটি দুর্দান্ত উপায়।

এর জন্য নির্জনতা এবং সময় প্রয়োজন,  সর্বদা মানুষের দ্বারা বেষ্টিত থাকলে এই হাতিয়ার টি খুঁজে পাওয়া কঠিন।





 ৩. সামাজিক শক্তি:-


 নিজের সাথে সময় কাটালে আপনি যা করেন তা আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকে।  কেউ আপনাকে বিচার করবে না, আপনাকে কি করতে হবে তা বলবে না।  মনে রাখবেন, কম নেতিবাচকতা আরও ইতিবাচকতার দিকে পরিচালিত করে, যা মেজাজ এবং সাধারণ স্বভাব বাড়ায়।






 ৪. উৎপাদনশীলতা:-


 আপনার উৎপাদনশীলতা বহুগুণ বৃদ্ধি পায় যখন আপনি অন্যরা কী করছেন বা তারা কীভাবে আপনার বিচার করছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হন না।








 কিছু কাজ যা আপনি একা করতে পারেন:



 * বিশ্ব ইভেন্টগুলি সম্পর্কে সচেতন হওয়া পুরোপুরি ঠিক, তবে খবরের প্রতি আসক্ত হওয়া আপনার মেজাজ নষ্ট করার থেকে দূরে থাকুন।



 * অবসর সময়ে আপনি কী করতে পছন্দ করেন, আপনার প্রিয় খাবারগুলি কী তা বিবেচনা করতে পারেন।



 *এমন ব্যক্তিদের সাথে ইতিবাচক সম্পর্ক রাখুন যারা আপনাকে উৎসাহিত করে এবং আপনার জীবনে গুরুত্বপূর্ণ।  



 * একটি পোষা প্রাণী থাকা দরকার।  এই সুন্দর ছোট বন্ধুটি আপনার সুখের মাত্রা অনেকটা বাড়িয়ে দেবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad