কোন তেল শিশুর মাথা মালিশ করার জন্য সবচেয়ে উপকারী? - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Friday, 1 October 2021

কোন তেল শিশুর মাথা মালিশ করার জন্য সবচেয়ে উপকারী?

 





প্রেসকার্ড নিউজ ডেস্ক : যদি শিশুর শৈশব থেকেই ভালোভাবে যত্ন নেওয়া হয়, তাহলে শিশুর স্বাস্থ্য ভালো থাকে।  শিশুকে শৈশবে যেমন খাওয়ানো হয়, তেমনি শিশুর বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রতিফলিত হয়।  অতএব শিশুর যত্ন অত্যন্ত যত্ন সহকারে করা উচিৎ।  শৈশবে, শিশুর ঘুমানোর সময় মা খুব যত্ন নেয়, যাতে শিশুর মাথা সোজা এবং সুশৃঙ্খল থাকে। 


 একইভাবে শিশুর চুলের জন্যও ম্যাসাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  এর জন্য, শিশুর মাথায় মালিশ করার সময় আপনার সঠিক তেল নির্বাচন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  আজ আমরা আপনাদের এমন কিছু তেল সম্পর্কে বলছি যা শিশুদের মাথায় ম্যাসাজ করলে, শিশুর চুলের বৃদ্ধি উন্নত করবে এবং চুল ভালো রাখবে।



 শিশুর মাথা ম্যাসেজ করার সুবিধা


 যদি ছোটবেলা থেকেই শিশুর মাথায় সঠিকভাবে মালিশ করা হয়, তাহলে শিশুদের চুলের বৃদ্ধি খুব ভালো হয়।


 শিশুদের মাথায় তেল মালিশ করলে রক্ত ​​চলাচল ভালো থাকে এবং ত্বককে ময়শ্চারাইজ করতেও সাহায্য করে।

 

তেল দিয়ে ম্যাসাজ করলে শিশুর মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পায়।

 

 শিশুর মাথায় ম্যাসাজ করলে ভালো ঘুম হয়।  এজন্য মাথায় ম্যাসাজ করা প্রয়োজন।

 

শিশুকে ম্যাসাজ করলে মাথা শিথিল হয় এবং মাথা ঠান্ডা হয়।



 শিশুর চুলে মালিশ করার জন্য কোন তেল ব্যবহার করা উচিত?



 সরিষার তেল- সরিষার তেল দিয়ে শিশুর মাথায় মালিশ করা খুবই উপকারী।  সরিষার তেলে রয়েছে মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড, ওমেগা এবং ফ্যাটি অ্যাসিড, যা চুলের ভালো বৃদ্ধিকে উৎসাহিত করে।  সরিষার তেল খুশকি ও চুলকানিও দূর করে।  সরিষার তেল দিয়ে শিশুর মাথায় মালিশ করা উপকারী।



 তিলের তেল- চুলে লাগানোর জন্য তিলের তেলও খুব উপকারী বলে মনে করা হয়।  তিলের তেল ব্যথা এবং ত্বকের সমস্যা কমায়।  এতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টি রয়েছে, যা মাথায় অনেক ধরনের ইনফেকশন সৃষ্টি করে না।  শীতকালে তিলের তেল গরম থাকে, তাই শিশুর মাথায় তিলের তেল দিয়ে মালিশ করতে হবে।



 ক্যাস্টর অয়েল- ক্যাস্টর অয়েলের অনেক উপকারিতা রয়েছে।  এতে রয়েছে ভিটামিন ই, যা চুলের ভালো বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।  শিশুর মাথায় ম্যাসাজ করার জন্য এটি একটি খুব ভাল তেল বলে মনে করা হয়।  কিন্তু যদি শিশুর কোনও ধরনের অ্যালার্জি থাকে, তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এই তেল ব্যবহার করবেন না।



 অলিভ অয়েল- অলিভ অয়েল শিশুদের শরীরের ম্যাসাজের জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।  যদি আপনি জলপাইয়ের তেল দিয়ে শিশুর মাথায় চ্যাম্পি করেন, তাহলে এটি খুবই উপকারী।  চুলকানি এবং খুশকিও জলপাই তেল দিয়ে শেষ হয়।  এই তেল দিয়ে চুলকে আরও চকচকে ও ঘন করা যায়। কোন তেল সবচেয়ে ভালো



নিউজ ডেস্ক : শৈশব থেকেই যদি ভালোভাবে শিশুর যত্ন নেওয়া হয়, তাহলে শিশুর স্বাস্থ্য ভালো হয়।  শিশুকে যেমন শৈশবে  খাওয়ানো হয়, তেমনি তা শিশুর বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রতিফলিত হয়। অতএব শিশুর যত্ন অত্যন্ত যত্ন সহকারে করা উচিৎ। শৈশবে, শিশুর ঘুমানোর সময় মা খুব যত্ন নেয়, যাতে শিশুর মাথা সোজা এবং সুশৃঙ্খল থাকে। 


 এছাড়াও শিশুর চুলের জন্যও ম্যাসাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই শিশুর মাথায় মালিশ করার সময় আপনার সঠিক তেল নির্বাচন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনাদের আজ এমন কিছু তেল সম্পর্কে বলছি যা শিশুদের মাথায় ম্যাসাজ করলে, শিশুর চুলের বৃদ্ধি উন্নত করবে এবং চুল ভালো রাখবে।



 শিশুর মাথা ম্যাসেজ করার সুবিধা


 যদি ছোটবেলা থেকেই শিশুর মাথায় সঠিকভাবে মালিশ করা হয়, তাহলে শিশুদের চুলের বৃদ্ধি খুব ভালো হয়।


 শিশুদের মাথায় তেল মালিশ করলে রক্ত ​​চলাচল ভালো থাকে এবং ত্বককে ময়শ্চারাইজ করতেও সাহায্য করে।

 

তেল দিয়ে ম্যাসাজ করলে শিশুর মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পায়।

 

 শিশুর মাথায় ম্যাসাজ করলে ভালো ঘুম হয়।  এজন্য মাথায় ম্যাসাজ করা প্রয়োজন।

 

শিশুকে ম্যাসাজ করলে মাথা শিথিল হয় এবং মাথা ঠান্ডা হয়।



 শিশুর চুলে মালিশ করার জন্য কোন তেল ব্যবহার করা উচিৎ?



 সরিষার তেল- সরিষার তেল দিয়ে শিশুর মাথায় মালিশ করা খুবই উপকারী।  সরিষার তেলে রয়েছে মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড, ওমেগা এবং ফ্যাটি অ্যাসিড, যা চুলের ভালো বৃদ্ধিকে উৎসাহিত করে।  সরিষার তেল খুশকি ও চুলকানিও দূর করে।  সরিষার তেল দিয়ে শিশুর মাথায় মালিশ করা উপকারী।



 তিলের তেল- চুলে লাগানোর জন্য তিলের তেলও খুব উপকারী বলে মনে করা হয়।  তিলের তেল ব্যথা এবং ত্বকের সমস্যা কমায়।  এতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টি রয়েছে, যা মাথায় অনেক ধরনের ইনফেকশন সৃষ্টি করে না।  শীতকালে তিলের তেল গরম থাকে, তাই শিশুর মাথায় তিলের তেল দিয়ে মালিশ করতে হবে।



 ক্যাস্টর অয়েল- ক্যাস্টর অয়েলের অনেক উপকারিতা রয়েছে।  এতে রয়েছে ভিটামিন ই, যা চুলের ভালো বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।  শিশুর মাথায় ম্যাসাজ করার জন্য এটি একটি খুব ভাল তেল বলে মনে করা হয়।  কিন্তু যদি শিশুর কোনও ধরনের অ্যালার্জি থাকে, তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এই তেল ব্যবহার করবেন না।



 অলিভ অয়েল- অলিভ অয়েল শিশুদের শরীরের ম্যাসাজের জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।  যদি আপনি জলপাইয়ের তেল দিয়ে শিশুর মাথায় চ্যাম্পি করেন, তাহলে এটি খুবই উপকারী।  চুলকানি এবং খুশকিও জলপাই তেল দিয়ে শেষ হয়।  এই তেল দিয়ে চুলকে আরও চকচকে ও ঘন করা যায়।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad