ধর্মীয়স্থানে যাবার সুফল! - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Monday, 6 September 2021

ধর্মীয়স্থানে যাবার সুফল!




 নিউজ ডেস্ক: আজ ব্যস্ততাপূর্ন জগতে সবাই এগিয়ে যাওয়ার আকাঙ্ক্ষায় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যস্ত। সব চেষ্টার পরেও অনেক সময় সাফল্য আসে না। এমন পরিস্থিতিতে, মানসিক চাপ, ক্লান্তি, উচ্চ রক্তচাপের মতো সব রোগ ব্যক্তিকে ঘিরে রাখে অল্প বয়সে। ক্লিনিকে ঘুরতে গেলে শরীর কিছুটা হলেও স্বস্তি পায়, কিন্তু মানসিক শান্তির জন্য এখন সবাই ডাক্তারের কাছে যেতে পারে না। এমন জায়গা যেখানে ইতিবাচকতা রয়েছে এবং এর জন্য মন্দির বা ধর্মীয় স্থানের চেয়ে বেশি কী হতে পারে।


 এই জায়গাগুলিতে প্রচুর পরিমাণে ইতিবাচক শক্তি পাওয়া যায় এবং এটি হওয়ার পিছনে একটি বৈজ্ঞানিক কারণ রয়েছে।  যখন আমরা ইতিবাচক শক্তির সংস্পর্শে আসি তখন শরীর এবং মস্তিষ্ক উভয়ই শিথিল হয়। এই কারণে, অনেক শারীরিক সমস্যা নিজেরাই চলে যায়।


আমরা যখন কোন ধর্মীয় স্থানে যাই, বাইরে জুতো খুলে যায়,এখানে পজিটিভ এনার্জি পায়ের মাধ্যমে আমাদের শরীরে প্রবেশ করে।  এর পাশাপাশি খালি পায়ে হাঁটাও পায়ে উপস্থিত প্রেসার পয়েন্টে চাপ সৃষ্টি করে, যার কারণে উচ্চ রক্তচাপ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকে।


 একইভাবে, যখন আমরা ঈশ্বরের সামনে হাত মিলিয়ে থাকি বা আরতির সময় হাততালি দেই, তখন এটি হাতের তালু এবং আঙুলে পাওয়া পয়েন্টগুলির উপর চাপ সৃষ্টি করে।  এটি শরীরের অনেক কাজকে উন্নত করে।  এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করতেও সাহায্য করে।  একটি গবেষণা অনুসারে, যখন আমরা মন্দিরের ঘণ্টা বাজাই, তখন এর শব্দ প্রায় ৭ সেকেন্ডের জন্য কানে অনুরণিত হয়। এই কারণে ৭ টি পয়েন্ট যা শরীরকে শিথিল করে সক্রিয় হয়ে ওঠে। যা শক্তির মাত্রা বাড়াতে সহায়ক।

 

 এই সব ধর্মীয়স্থানে যে সুরে আরতি বা গান গাওয়া হয় তা আমাদের মনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। শান্ত পরিবেশ বা শঙ্খের আওয়াজ মানসিক অবস্থার উন্নতি ঘটায়।  মন্দিরে উপস্থিত কর্পূর এবং যজ্ঞের ধোঁয়া ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে।  এটি ভাইরাল সংক্রমণের ঝুঁকি দূর করে।


 ভ্রুর মাঝখানে কপালে তিলক লাগিয়ে আমাদের মস্তিষ্কের একটি বিশেষ অংশে চাপের কারণে ঘনত্বের মাত্রা বেড়ে যায়।


 অর্থাৎ মানসিক চাপ, বিষণ্নতা এবং মানসিক অবসাদ দূর করতে প্রতিদিন কিছু সময় ধর্মীয় স্থানে ব্যয় করা যেতে পারে।  এর মাধ্যমে আমরা ঈশ্বরের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে পারি এবং আমাদের দৈনন্দিন সমস্যা থেকেও মুক্তি পেতে পারি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad