ঝাড়খণ্ডে প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্য কার্ড তৈরি করা হবে - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Sunday, 26 September 2021

ঝাড়খণ্ডে প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্য কার্ড তৈরি করা হবে





ঝাড়খণ্ডের সরকারি স্কুলের প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর সকল শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্য কার্ড তৈরি করা হবে। এতে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য থাকবে। স্বাস্থ্য কার্ড তৈরির জন্য অভিভাবক ও শিক্ষকদের একটি বৈঠক হবে। শিক্ষকরা অভিভাবকদের সঙ্গে শিশুদের পুষ্টি এবং শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে আলোচনা করবেন।



স্কুল শিক্ষা ও সাক্ষরতা বিভাগ পুষ্টি অভিযানের আওতায় সকল স্কুলে এটি বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছে। ঝাড়খণ্ড রাজ্য মিড ডে মিল কর্তৃপক্ষের পরিচালক কিরণ কুমারী পাসি এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেছেন।


মিড-ডে মিল স্কিমের মাধ্যমে প্রথম থেকে অষ্টম    শ্রেণী এর শিক্ষার্থীদের পুষ্টির সুবিধা দেওয়া হচ্ছে কিনা এবং এটি শিশুদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের উপর অনুকূল প্রভাব ফেলছে কিনা সে বিষয়ে অভিভাবকদের কাছ থেকে তথ্য নেওয়া হবে।


স্কুলের প্রধান শিক্ষক এবং শারীরিক শিক্ষকরা স্বাস্থ্য কার্ড তৈরিতে তাদের ভূমিকা পালন করবেন। এনসিইআরটি কর্তৃক বিকশিত পাঠ্যক্রমের ভিত্তিতে, সকল সরকারি স্কুলে প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত পুষ্টি এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের উপর শিক্ষা নিশ্চিত করা হবে। পুষ্টি ও শারীরিক স্বাস্থ্য বিষয়ে স্কুলের প্রতিটি ক্লাসে ৪৫ মিনিটের ঘণ্টা থাকবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকে এটি নিশ্চিত করার দায়িত্ব সকল শিক্ষকের।




পুষ্টি অভিযান সংক্রান্ত সরকারি বিদ্যালয়ে পুষ্টি সভা ও পুষ্টি কুইজের আয়োজন করা হবে। সকল সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে পুষ্টি সভা শিক্ষার্থীদের সাথে ভার্চুয়াল অথবা স্কুলে তাদের ডেকে করা হবে। এছাড়াও থাকবে একটি কুইজ। কুইজ প্রতিযোগিতা অনলাইন এবং ভার্চুয়াল মোডে অনুষ্ঠিত হবে। কুইজে শিশুদের ডায়েটে প্রোটিনের অভাবে কোন রোগ হয়। ১ বছর পর্যন্ত শিশুদের প্রোটিন এবং কার্বোহাইড্রেটের অভাবজনিত রোগের নাম কি, খাবারে ভিটামিন এ এর ​​অভাবে কি হতে পারে। আয়রন, ভিটামিন ডি, সি, বি, ক্যালসিয়ামের অভাবের কারণে কোন রোগ হতে পারে? এ ধরনের প্রশ্ন তাদের কাছে করা যেতে পারে।



বিদ্যালয়ে পুষ্টি উদ্যান স্থাপন করা হবে


কস্তুরবা গান্ধী বালিকা বিদ্যালয়, রাজ্যের অন্যান্য আবাসিক বিদ্যালয় এবং সরকারি বিদ্যালয়ে পুষ্টি উদ্যান স্থাপন করা হবে। বিশেষ অভিযান চালিয়ে গাছ লাগানো হবে। পুষ্টিকর গাছ ও গাছপালা লাগানো হবে। ড্রামস্টিক প্ল্যান্ট, কোয়েনার, পুটকাল , সানাই, পেয়ারা, শরিফা, পালং শাক, সবুজ ও লাল সবুজ, বেং সাগ , ভাথুয়া, কলমি, চকোর লাগানো হবে। ভিটামিন এবং আয়রন সমৃদ্ধ উদ্ভিদও রোপণ করা হবে। যে স্কুলগুলি খোলা হয়েছে, তাদের আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে এটি নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad