প্রথম আফগান মহিলা মেয়র দিলেন ওপেন চ্যালেঞ্জ তালেবানদের - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Wednesday, 18 August 2021

প্রথম আফগান মহিলা মেয়র দিলেন ওপেন চ্যালেঞ্জ তালেবানদের




নিউজ ডেস্ক : তালেবান গোটা আফগানিস্তানে ভয়াবহ পরিবেশ সৃষ্টি করেছে।  জীবন বাঁচানোর জন্য সেখানের নাগরিক অন্য দেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়।  আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি তালেবানের ভয়ে দেশ ত্যাগ করেছেন।  এমন পরিস্থিতিতে আফগানিস্তানের এক মহিলা তালেবানদের খোলা চ্যালেঞ্জ দিয়েছেন। তিনি পাকিস্তানের প্রথম এবং সর্বকনিষ্ঠ মহিলা মেয়র জারিফা গাফারি।  তিনি বলেছেন, তালেবানরা আসুক আর আমাকে মেরে দেখাক।


 তালেবানদের খোলা চ্যালেঞ্জ দিয়ে জারিফা গাফারি বলেছেন, 'আমি এখানে তাদের আগমনের জন্য অপেক্ষা করছি।  আমাকে বা আমার পরিবারকে সাহায্য করার জন্য এখানে কেউ নেই।  আমি শুধু তাদের (পরিবার) এবং আমার স্বামীকে নিয়ে বসে আছি এবং তারা (তালেবানরা) আসবে এবং আমার মত মানুষদের জন্য আমাকে হত্যা করবে।  তালেবানরা পুরো দেশ দখল করার পর তিনি এ কথা বলেন।


 জারিফা গাফারি বলেছেন, আশরাফ গনি নেতৃত্বাধীন সরকারের সিনিয়র সদস্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন।আমি কোথায় যাবো। জারিফা গাফারি তালেবানদের ক্ষমতা দখল করার আগে আন্তর্জাতিক দৈনিকের সঙ্গে কথা বলে আফগানিস্তানের একটি সুন্দর ভবিষ্যৎ কামনা করেন।  কিন্তু তালেবানদের দেশ দখলের সঙ্গে সঙ্গে তাদের সব আশা ভেঙ্গে গেল।


 জারিফা গাফারী ২০১৮ সালে ময়দান ওয়ারদাক প্রদেশের প্রথম এবং সর্বকনিষ্ঠ মহিলা মেয়র হয়ে শিরোনামে এসেছিলেন।  ঘাফারি এখন অপেক্ষা করছে তালেবান তার এবং তার মত অন্যদের কাছে পৌঁছানোর জন্য।


 গাফারি ইতিমধ্যে তালেবানদের কাছ থেকে প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছে।  তৃতীয়বারের মতো মেয়র গাফারিকে খুন করতে ব্যর্থ হওয়ার পর তার বাবা জেনারেল আবদুল ওয়াসি গাফারী গত বছর ১৫ নভেম্বর সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।


গাফারিকে কাবুলে সন্ত্রাসী হামলায় আহত সৈনিক ও বেসামরিক নাগরিকদের কল্যাণের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল যখন তালেবানরা কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নিতে শুরু করেছিল।


 তিন সপ্তাহ আগে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে, গাফারি বলেছিলেন যে সৈনিকরা কী ঘটছে তা জানে।  তাদের সোশ্যাল মিডিয়া আছে।  তারা সেখানে যোগাযোগ করে।  আমি মনে করি তারা অগ্রগতি এবং আমাদের অধিকারের জন্য লড়াই চালিয়ে যাবে।  আমার মনে হয় এটাই এই দেশের ভবিষ্যৎ।  কিন্তু আজ আমি নিজেকে এবং আমার পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে অসহায় এবং উদ্বিগ্ন বোধ করছি।  তিনি বলেছিলেন যে আমরা আশা করেছিলাম কাবুল তালেবানদের হাতে ধরা পড়বে না।


তিনি আরও বলেছেন, যদিও তালেবানরা বলেছে যে তারা আগের সরকারের সঙ্গে যারা কাজ করেছিল তাদের প্রতিশোধ নেবে না। তবে তালেবানদের ইতিহাস দেখলে তাদের বিশ্বাস করা কঠিন।


গাফারি বলেছেন, মহিলারা সবচেয়ে বেশি ভয় পায় তালেবানদের। কারণ অতীতে তালিবানরা নারী শিক্ষা বন্ধ করে দিয়েছিল। তাদের কাজ থেকে বিরত রেখেছিল এবং ন্যায়বিচারের আড়ালে তাদের নির্যাতন করেছিল।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad