কঙ্গনা রানাউত আমির খানের সিদ্ধান্তের উপর প্রশ্ন তুলল - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Tuesday, 6 July 2021

কঙ্গনা রানাউত আমির খানের সিদ্ধান্তের উপর প্রশ্ন তুলল




  নিউজ ডেস্ক : আমির খান এবং কিরণ রাও বিয়ের ১৫ বছর পর একে অপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল।  দুজনেই তিন'দিন আগে একসঙ্গে এটি ঘোষণা করেছেন।  সেই থেকে সর্বত্র সুবাস শুরু হয়ে গেছে।  আমির ও কিরণের বিবাহ বিচ্ছেদের খবর শুনার পর অনেকে তাদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।  এদিকে আমির খানের সিদ্ধান্তের পরে প্রশ্ন তোলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত।


 আসলে কঙ্গনা রানাউত সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয়।  তিনি প্রায়শই সমসাময়িক প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে খোলামেলাভাবে তাঁর বক্তব্য রাখেন।  আমিরের বিবাহ বিচ্ছেদের খবরের পর এখন তিনি একটি প্রশ্ন তুলেছেন।  কঙ্গনা  প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন যে বিয়ে করার জন্য কেন সর্বদা ধর্ম পরিবর্তন করতে হবে?  তিনি আমিরের ছেলের নাম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।


 কঙ্গনা রানাউত তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টের স্টোরিতে এটি নিয়ে কথা বলেছেন।  কঙ্গনা লিখেছেন, 'এক সময় পাঞ্জাবের বেশিরভাগ পরিবারে এক ছেলেকে হিন্দু এবং অন্যজনকে শিখ বানানোর রীতি ছিল।  হিন্দু ও মুসলমান বা শিখ ও মুসলমানদের মধ্যে এ জাতীয় প্রবণতা দেখা যায়নি।  আমির খান স্যারের তালাকের পরে আমি ভাবলাম যে কেন আন্তঃধর্মীয় বিবাহের ক্ষেত্রে বাচ্চারা সবসময়ই মুসলমান হয়ে ওঠে।

 

 কঙ্গনা আরও লিখেছেন, 'মহিলারা কেন সর্বোপরি হিন্দু থাকতে পারেন না।  সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে আমাদেরও এটি পরিবর্তন করা উচিত। হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ, রাধাসোমিস এবং নাস্তিকরা যদি এক পরিবারে একসাথে থাকতে পারে তবে মুসলমানরা কেন নয়? মুসলমানকে বিয়ে করার জন্য কেন কারও ধর্ম পরিবর্তন করতে হবে? '


 আমির খান যখন তাঁর স্ত্রী কিরণ রাওর কাছ থেকে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছিলেন তখন একটা হৈ চৈ হয়েছিল।  বিবাহ বিচ্ছেদের বিষয়ে আমির খান ও কিরণ রাওর একটি সরকারী বিবৃতি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হয়েছিল।  এই বিবৃতি অনুসারে, উভয়ই পারস্পরিক সম্মতিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।  একই সঙ্গে এই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে যে দুজনেই একসঙ্গে ছেলে আজাদের দেখাশোনা করবেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad