জ্বরঠোসার ব্যথা ও ঘা থেকেে দ্রুত মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন এই জিনিসগুলি - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Monday, 5 July 2021

জ্বরঠোসার ব্যথা ও ঘা থেকেে দ্রুত মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন এই জিনিসগুলি

 



নিউজ ডেস্ক : জ্বরঠোসা হলে প্রাথমিক অবস্থায় কী করা উচিত তা জানা নেই অনেকেরই। ব্যথার ওষুধ কিংবা অ্যান্টিসেপটিক ক্রিম ব্যবহার না করে বরং প্রাকৃতিক উপায়ে এই জ্বরঠোসা সারাতে পারেন। জেনে নিন কীভাবে দ্রুত সারাবেন জ্বরঠোসার ব্যথা ও ঘা-


আপেল সিডার ভিনেগার


শারীরিক নানা সমস্যার সমাধান করে আপেল সিডার ভিনেগার। ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে এই দাওয়াই। আপেল সিডার ভিনেগারের সঙ্গে পানি মিশিয়ে প্রতিদিন দুইবেলা করে জ্বরঠোসার উপর লাগালেই দ্রুত সেরে যাবে।



সেইসঙ্গে ব্যথা ও ঘা দ্রুত শুকাবে এবং দাগও দূর হয়ে যাবে। জল ছাড়া আপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করবেন না, এতে জ্বালা করবে।


অ্যালোভেরা


অ্যালোভেরায় থাকা বিভিন্ন পুষ্টিগুণ ক্ষত সারাতে বিবেশ কার্যকরী। জ্বরঠোসার ক্ষত নিরাময়ে অ্যালোভেরা জেল সামান্য জলে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুলকানি ও ব্যথা কমবে সেইসঙ্গে ঘা দ্রুত শুকিয়ে যাবে।



আদার তেল


আদায় আছে বিভিন্ন পুষ্টিগুণ। শারীরিক বিভিন্ন সমস্যার দাওয়াই এটি। বিশেষ করে ব্যথা কমাতে জাদুকরী ভূমিকা রাখে আদা। জ্বরঠোসা হলে আদার তেল ব্যবহারে দ্রুত নিস্তার পাবেন। এই তেল হার্পস ভাইরাসকে ধ্বংস করতে সক্ষম।


পুদিনার তেল


ল্যাব পরীক্ষায় দেখা যায়, পেপারমিন্ট অয়েল এইচএসভি-১ এবং হার্পস সিমপ্লেক্স ভাইরাস টাইপ-২ (এইচএসভি-২) উভয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করতে কার্যকর। এই ভাইরাসগুলোই জ্বরঠোসা হওয়ার জন্য দায়ী। তাই পেপামিন্ট অয়েল ব্যবহারের মাধ্যমে দ্রুত জ্বরঠোসা সারবে।



গরম ও ঠান্ডা সেঁক


গবেষণা অনুসারে, জ্বরঠোসার উপরে গরম সেঁক নিলে দ্রুত ব্যথা কমবে। সেইসঙ্গে ফোলাভাব, চুলকানি থেকে মুক্তি পাবেন। সুতির কাপড় গরম করে সেঁক নিতে পারেন। যদি জ্বরঠোসার কারণে ঠোঁট ফুলে যায়; সেক্ষেত্রে ঠান্ডা সেঁক নিতে পারেন।



রসুন


গবেষণা অনুসারে, রসুনে থাকা অ্যান্টি-ভাইরাল বৈশিষ্ট্য জ্বরঠোসা সারাতে কাজ করে। এক কোয়া রসুন থেঁতলে তার মধ্যে অলিভ অয়েল মিশিয়ে জ্বরঠোসায় ব্যবহারে উপকার মিলবে দ্রুত। এই মিশ্রণটি জ্বরঠোসায় দিনে তিনবার পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারেন।



ভিটামিন ই


ভিটামিন ই’তে থাকে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা ত্বকের ক্ষতিকর কোষগুলো মেরামত করতে সহায়তা করে। জ্বরঠোসা সারাতে কাজ করে ভিটামিন ই। সেইসঙ্গে ঘা নিরাময় এবং ব্যথা কমাতে দ্রুত কাজ করে এই তেল।




সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন


সূর্যের আলোর ক্ষতিকর রশ্মিতে জ্বরঠোসা আরও মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এজন্য সরাসরি সূর্যের আলো যাতে জ্বরঠোসায় না লাগে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। আপনার ঠোঁটে এবং তার চারপাশে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে ভুলবেন না যেন! অবশ্যই সানস্ক্রিনে যেন এসপিএফ-৩০ থাকে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad