করোনাকালে তৃণমূল বিধায়কদের উদ্যোগে বেলুড়ে অক্সিজেন পার্লার, উত্তর হাওড়ায় 'কোভিড কিচেন - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Friday, 21 May 2021

করোনাকালে তৃণমূল বিধায়কদের উদ্যোগে বেলুড়ে অক্সিজেন পার্লার, উত্তর হাওড়ায় 'কোভিড কিচেন

  


 করোনাকালে সাধারণ মানুষের পাশে  বালির বিধায়ক ডাঃ রাণা চট্টোপাধ্যায়। তাঁর উদ্যোগে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে চালু হতে চলেছে অক্সিজেন পার্লার। বেলুড়ের লালবাবা কলেজে চালু করা হবে অক্সিজেন পার্লার। পর্যাপ্ত অক্সিডেন সিলিন্ডারের পাশাপাশি এখানে খালি সিলিন্ডার ভর্তি করার ব্যবস্থাও থাকবে। বালির নবনির্বাচিত তৃণমূল বিধায়ক ডাঃ রাণা চট্টোপাধ্যায়ের উদ্যোগে এই অক্সিজেন পার্লারটি চালু হতে চলেছে। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি এবং পরিকাঠামো তৈরির কাজ শেষ হয়ে গিয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী বৃহস্পতিবার থেকেই এখানে অক্সিজেন পার্লার চালু হয়ে যাবে বলে জানান রাণাবাবু। আপদকালীন কেস চিহ্নিত করে সেই রোগীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।


 প্রাথমিকভাবে পাঁচটি বেড থাকছে। পরে চাহিদা অনুযায়ী বেড বাড়ানো হবে। যিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন তাঁকে বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করে ওয়েটিং লিস্টে থাকা পরবর্তী ব্যক্তি ভর্তির সুযোগ পাবেন। তবে, আশঙ্কাজনক রোগীকে হাসপাতালে পাঠানো হবে। এটি চালু করার জন্য জেলা প্রশাসনের প্রয়োজনীয় অনুমোদনও মিলে গিয়েছে। অক্সিজেন পার্লার চালু হলে এলাকার করোনা আক্রান্তদের অক্সিজেনের হাহাকার অনেকটাই লাঘব হবে। জানা গেছে, ভোটের ফল ঘোষণার পর থেকে স্থানীয় চিকিৎসকদের একটি দল গঠন করে বালি, বেলুড়, লিলুয়া এলাকার করোনা আক্রান্তদের টেলিমেডিসিন পরিষেবার মাধ্যমেও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি স্থানীয়দের নিয়ে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীও গড়ে তুলেছেন বালির বিধায়ক। 


আক্রান্তদের কারও বাড়িতে খাবার বা বাজার পৌঁছে দেওয়া, ওষুধ পৌঁছে দেওয়া থেকে শুরু করে প্রয়োজনে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, উত্তর হাওড়ার নবনির্বাচিত বিধায়ক গৌতম চৌধুরীর উদ্যোগেও চিকিৎসকদের একটি দল টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে করোনা আক্রান্তদের পরামর্শ দিচ্ছেন। বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূলের স্বেচ্ছাসেবী দলও সক্রিয় রয়েছে বলে জানিয়েছে তৃণমূল। এছাড়াও কোভিড আক্রান্ত রোগীদের জন্য উত্তর হাওড়ায় বিধায়ক গৌতম চৌধুরীর উদ্যোগে 'কোভিড কিচেন' চালু করা হয়েছে। বাড়ি বাড়ি রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad