অযোধ্যা পাহাড়ের উপরে স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করার উদ্যোগ নিল পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন - Breaking Bangla |breakingbangla.com | Only breaking | Breaking Bengali News Portal From Kolkata |

Breaking

Post Top Ad

Wednesday, 26 May 2021

অযোধ্যা পাহাড়ের উপরে স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করার উদ্যোগ নিল পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন

  


পুলিশ ক্যাম্প তৈরি করে অযোধ্যা পাহাড়ের উপরে স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করার উদ্যোগ নিল পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন। বেশ কয়েক বছর আগে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পরিকাঠামো তৈরি করা হলেও। ‘মাও আতঙ্ক’–এর কারনে সেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রেকাজেই যোগ দেননি স্বাস্থ্য কর্মীরা। কয়েক বছর আগেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বহির্বিভাগ চালু হলেও বন্ধই ছিল অন্তর্বিভাগ। ফলে  সেভাবে পুরুলিয়ার বাঘমুন্ডি ব্লকের অযোধ্যা পাহাড়ের তেলিয়াভাসা প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্র থেকে সেভাবে পরিষেবা পাচ্ছিলেন নাঅযোধ্যা পাহাড় তলির মানুষজন। তাইপুরোভাগে  অযোধ্যা পাহাড়ের তেলিয়াভাসা প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্র চালু করছে পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন। 


শনিবার পুরুলিয়া অযোধ্যা পাহাড়ে ‘গো টু ভিলেজ’–এ গিয়ে ওই প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্রে পরিদর্শনে যান পুরুলিয়া জেলা শাসক রাহুল মজুমদার। সঙ্গে ছিলেন পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার এস. সেলভামুরুগন। জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার ওই হাসপাতাল পরিদর্শন করে সেখানেই সিদ্ধান্ত নেন এই প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্র পুরোভাগে চালাতে এখানে পুলিশ ক্যাম্প বসানো হবে। এই সিদ্ধান্তের কথা সেখানকার স্বাস্হ্য কর্মীদেরকে জানিয়েও দেন জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার। সেইসঙ্গে পরে বাঘমুন্ডি ব্লক প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করে জেলাশাসক নির্দেশ দেন সেখানকার পাথরডি ব্লক স্বাস্হ্য কেন্দ্রের আধিকারিক রামকৃষ্ণ ঘোষকে তেলিয়াভাসা স্বাস্হ্য কেন্দ্রের জন্য নিযুক্ত চিকিৎসক কৃতি হালদারকেওখানকার দায়িত্ব নিতে।


 প্রশাসন সুত্রে জানাগিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরে ২০১৮ সালের দশ শয্যার এই প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্রের উদ্বোধনহয়েছিল। তারপরে ওই প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করতে এক চিকিৎসক ও দুই সেবিকা ও একজন চতুর্থ শ্রেনীর কর্মী নিয়োগ করা হয়।চিকিৎসক নিয়োগ করা হলেও সেখানে তিনি যেতেন না।তেলিয়াভাসা কেন্দ্রের বহির্বিভাগ সামলাতেন দুই সেবিকা সন্তোষী কুইরি ও উপাল হাঁসদা। চিকিৎসক সেখানে না যাওয়ায় ক্ষোভ ছিল স্হানীয় বাসিন্দাদের। তাই নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে পুলিশ ক্যাম্প বসিয়ে স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করার সিদ্ধান্ত নেয় পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন। তবে এদিন থেকে ক্যাম্প বসিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন।


 জেলাশাসক রাহুল মজুমদার বলেন, “ওখানে পুলিশ ক্যাম্প করে দেওয়া হয়েছে। স্বাস্হ্য কর্মীদের আর কোন সমস্যা থাকবে না। তারা সেখানে থেকেই কাজ করতে পারবেন। ওখানকার চিকিৎসককেও সেখানে দ্রুত কাজে যোগ দিতে বলা হয়েছে।” 

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad